ভুঁড়ির সমস্যায় জেরবার? সহজে সামলান

ভুঁড়ির সমস্যায় অনেক মানুষই দুশিন্তায় পরে যান এই ভেবে যে,এই ভুঁড়ির জন্য তাদের অন্য অনেক জনের থেকেই দেখতে খারাপ লাগে। শুধু তাই নয়, যে প্রিয় জামাটা আপনার গায়ে মাস তিন- চারেক আগেই হচ্ছিল, সেটি এখন এই ভুঁড়ি হয়ার কারণে আর ফিট হয় না। এমনকি এই ভুঁড়ি বা অত্যাধিক শরীরে ফ্যাট হওয়ার কারণে দুই ধরণের সমস্যা বেশি হারে হতে পারে, – ডাইয়াবেটিস এবং হার্ট প্রবলেম। এই কারণে আমাদের সুস্থ ভাবে দীর্ঘকাল বাঁচতে গেলে শরীরের অত্যাধিক ফ্যাট কমানো অবশ্যই দরকার। এখানে নীচে ভুঁড়ি কমানোর কিছু সহজ পদ্ধতির কথা উল্লেখ করা হয়েছেঃ-

প্রতিদিন ব্যায়াম বাঁ ওয়ার্ক আউটঃ-  এটি ভুঁড়ি কমানোর একটি অন্যতম উপায়। তাই ভুঁড়ি কমানোর জন্য ব্যায়াম বা ওয়ার্ক আউট আমাদের প্রতিদিন কাজের লিস্টে যেন অবশ্যই থাকে, সেদিকে গুরুত্ব দিন। প্রতিদিন অন্তত ৪০-৫০ মিনিট ওয়ার্ক আউট আমাদের সবাইকে করা উচিত।

আরও পড়ুন…জানেন কি? রাত জেগে সোশ্যাল মিডিয়া আপনার অনিদ্রার কারণ হতে পারে?

ঈষৎ উষ্ণ জলপানঃ-   ঈষৎ উষ্ণ জল শরীরের মেদ কমাতে সাহাযয় করে। আমাদের গরমের দেশে একজন পূর্ণ-বয়স্ক মানুষকে সারাদিনে অন্তত ৩-৪ লিটার জল অবশ্যই খাওয়া উচিৎ। প্রতিদিন সকালে খালি পেটে ঈষৎ উষ্ণ গরম জলে অল্প লেবু ও এক চামচ মধু মিশিয়ে খেলে, এই পানীয় আপনাদের শরীরের মেদ কমাতে সাহাযয় করবে।       

হাঁটার সুঅভ্যাসঃ-  হাঁটা হল শরীরের অতিরিক্ত মেদ কমানোর জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ এক্সসারসাইজ। হাঁটা মানে দ্রুত হাঁটা, ইংরাজিতে যাকে বলে Brisk walking. এই হাঁটা যদি প্রতিদিন টানা ৪৫ মিনিট ধরে করা যায়, তাহলে এটি শরীরের অতিরিক্ত মেদ ঝরাতে সাহায্য করবে।         

আরও পড়ুন… ঠাণ্ডা লেগে গলায় ব্যাথা? সারান এই পাঁচটি ঘরোয়া পদ্ধতিতে

প্রোটিনযুক্ত খাবারের খাদ্যাভ্যাসঃ-  প্রোটিন হল আমাদের খাদ্যের তালিকায় সবথকে গুরুত্বপূর্ণ উপাদান, যখন আপনি আপনার শরীরের মেদ কমাতে চাইছেন। এটি আপনার শরীরের মেটাবলিজম বারাতে সাহায্য করে। তাই প্রোটিন যুক্ত খাবার খাওয়ার সুঅভ্যাস গরে তুলুন, এটি আপনার ডায়েট চার্টে সবথেকে বেশি ফলপ্রদ হতে পারে, যার জন্য আপনার শরীরে অতিরিক্ত মেদ কমতে পারে।

চিনি কমঃ- অতিরিক্ত চিনি বা মিষ্টি খাওয়া স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকারক। চিনি বাঁ সুগার হল হাফ গ্লুকজ ও হাফ ফ্রক্তোজ। অতিরিক্ত চিনি বা মিষ্টি খাওয়ার ফলে লিভারে এই ফ্রুতজের মাত্রা অতিরিক্ত হয়ে যায়, ফলে সেটাই ফ্যাটে পরিণত হতে বাধ্য হয়। তাই শরীরে মেদ কমানোর জন্য অতিরিক্ত চিনি বা মিষ্টি থকে দূরে থাকাই ভালো।           

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *